এসইও হাতে খড়ি – অধ্যায়ঃ দুই

আর্টিকেল পড়ার নিয়মাবলী

জুনিয়ার এসইও প্রফেশনাল টাস্ক লিস্ট এবং ফ্রি এসইও অনলাইন কোর্স ও সাপোর্ট

এসইও তে ভাল করার সব থেকে সহজ সরল উপায় হল আপনার টার্গেট ভিজিটরের আসলে কি দরকার এইটা খুঁজে বের করা। আপনি যদি জানতে পারেন আপনার টার্গেট ভিজিটরা কি লিখে গুগল সার্চ করে এবং তার বিপরীতে সে কোন ধরনের উত্তর আসা করে, তাহলে ঝামেলা শেষ।

সবসময় মনেরাখবেন আপনার ওয়েবসাইট কিন্তু ভিজিটরের জন্য, সার্চ ইঞ্জিনের জন্য নয়। মানুষ সাধারণত তিন ধরনের জিনিস নিয়ে সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করে থাকে।

  • “কি ভাবে”ঃ মনে করেন কেউ ভাবছে ঢাকা থেকে যশোর যাবে। তাহলে, টিকিটের দাম কত? অথবা, ভাল লাগা একটা গান খুব শুনতে ইচ্ছা করছে কিন্তু কাছে নাই।
  • “জানতে চাই”ঃ এই ধরনের সার্চ হয় কোন কিছু জানতে চেয়ে। মনেকরেন, ঢাকা কত দূরে। যশোর কি জিনিস?
  • “কি ভাবে যাব”ঃ কোন জায়গায় জেতে চাইলে কি ভাবে যাবে সে সম্পর্কে। তবে এই খানে যে শুধু মাত্র কোন স্থানে জাওয়া লাগবে টা কিন্তু নয়। হতেপারে, সেটা মাইক্রোসফটের ওয়েবসাইট কোন খানে খুঁজে বের করা অথবা ফেসবুক।

যখন কোন ভিজিটর কোন কিছু লিখে সার্চ বক্সে সার্চ করে এবং আপনার সাইটে এসে হাজির হয় তখন কি সে খুশি? মানে আপনার ওয়েবসাইটে যে কারণে সে আসল, সেই সমাধান কি আপনি দিতে পেরেছেন? সার্চ ইঞ্জিনে প্রত্যেকদিন প্রায় বিলিয়ন বিলিয়ন সার্চ পড়ে এবং সার্চ ইঞ্জিনের কাজ হল এই কাজের সমাধান করা।

সার্চ ইঞ্জিনের প্রধান কাজ হল কিওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করার পর তার রিলিভেঞ্চি অনুযায়ী সমাধান খুঁজে বের করা এবং আপনার সামনে এনে হাজির করা। সুতরাং, আপনার ভিজিটর যখন কিছু জানার জন্য আপনার সাইটে আসে, তখন আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে তার সমাধান আপনার কাছে আছে।

আর এই সব কিছু শুরু হয় ঐ সার্চ ইঞ্জিনের ছোট বক্স থেকে।

সার্চ ইঞ্জিনের ব্যবহার দিন দিন শুধু বেড়ে চলেছে। তবে, যতই বাড়ুক তার মূল ব্যবহারের কারন কিন্তু কোন পরিবর্তন হয়নি। একজন সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারকারির সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া যদি আমরা স্টেপ বাই স্টেপ ভাগ করে তাহলে কেমন হতে পারে, চলেন দেখা যাকঃ

১। তার কোন কিছু সম্পর্কে উত্তর, সমাধান অথবা তথ্য লাগবে

২। একটা কিওয়ার্ড খুঁজে বের করা

৩। কিওয়ার্ডকে সার্চ ইঞ্জিনে দিয়ে উত্তর খোজার চেষ্টা

৪। একটা ফলাফলে ক্লিক করা

৫। যে সমাধান গুল দেয়া আছে সে গুল পর্যবেক্ষণ করা

৬। মনেরমত উত্তর না পাইলে আবার সার্চ করা

৭। এইবার কিওয়ার্ডকে একটু পরিবর্তন করে

আর এইভাবেই সমাধান খোঁজার চক্র চলতে থাকে যতক্ষণ পর্যন্ত মনের মত সমাধান খুঁজে না পাওয় যায়।

2 thoughts on “এসইও হাতে খড়ি – অধ্যায়ঃ দুই”

    1. অবশ্যই চেষ্টা করব দ্রুত দেয়ার জন্য। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। 🙂

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *